June 23, 2024, 2:13 pm
ব্রেকিং নিউজ

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় মাটি খুঁড়লেই মিলছে স্বর্ণ

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম Sunday, May 26, 2024
  • 30 দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক:
মাটি খুঁড়লেই স্বর্ণ পাওয়া যাচ্ছে, এমন খবর ছড়িয়ে পড়ায় গ্রামের অনেকেই মাটি খোঁড়া শুরু করেন। এরপর সেখানে যোগ দিয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। ঘটনাটি ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার কাতিহার আরবিবি ইট ভাটার। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে আশপাশের বিভিন্ন জেলা উপজেলার নানা বয়সী হাজার হাজার মানুষ কেউ কোদাল, কেউ বসিলা, কেউ খুন্তি নিয়ে স্বর্ণের খোঁজে মাটি খনন করতে শুরু করে। এরপর থেকে ওই ইট ভাটায় ভাগ্য বদলের আশায় দিন-রাত চলছে যেন মাটি খনন প্রতিযোগিতা।

রাতে দূর থেকে টর্চের আলোয় আরবিবি ইট ভাটা দেখলে আলোকিত পাহাড় বলেই মনে হয়। রাতের আঁধারে টর্চের আলোতে কিংবা দিনের বেলায় প্রচণ্ড গরমের মধ্যেই চলছে মাটি খননের কাজ।

স্থানীয়রা জানান, সোনা পেলে নিজেদের ভাগ্য বদল হবে এই আশায় কেউ বসে নেই। আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে স্বর্ণের সন্ধানে ছুটে আসছেন নানান পেশার মানুষ। এরই মধ্যে স্বর্ণের মোহর, কানের দুল, আংটি, মূর্তি পেয়েছেন কেউ কেউ। কেউ কেউ স্বর্ণ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করলেও অনেকেই চুপি চুপি নিয়ে যাচ্ছেন। পরদিন শোনা যাচ্ছে, কোনো স্বর্ণকারের দোকানে বিক্রি করেছেন সেই স্বর্ণ। আবার নিরাশ হয়েও ফিরছেন অনেকে।

স্থানীয়রা আরও দাবি করেন, আরবিবি ইট ভাটার মালিক ও ম্যানেজারই সবার প্রথমে স্বর্ণ পেয়েছেন। এছাড়া এ পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকার প্রায় শতাধিক মানুষ স্বর্ণ পেয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। প্রতিদিন সকাল, দুপুর, বিকেল এবং সন্ধ্যার পর থেকে সারা রাত চলে স্বর্ণ পাওয়ার জন্য মাটি খনন। গত ৫/৬ দিন আগে স্থানীয় প্রশাসন সতর্কতা হিসেবে লাল ঝাণ্ডা পুঁতে দিয়ে গেলেও নিষেধ মানছে না মাটি খুঁড়তে আসা উৎসুক জনতা।

বাচোর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য উমর আলী বলেন, কয়েক দিন ধরেই চলছে মাটি খোঁড়াখুঁড়ি। কিন্তু কেউ স্বর্ণ পেয়েছে এমন খবর আমি শুনিনি, দেখিওনি। কিন্তু কেউ কেউ বলছে স্বর্ণ পাওয়া গেছে। বিষয়টি প্রশাসনকে বলা হয়েছিল। প্রশাসন ঘটনাস্থলে গিয়েছিল কিন্তু হাজার হাজার মানুষ জায়গাটা ঘিরে রাখায় তারা কিছু না করে ফিরে গেছে।

এদিকে ইটভাটার ব্যবস্থাপক লিটন আলী জানান, কাতিহার সামরাই মন্দিরের পাশ থেকে মাটি খনন করে ইটভাটায় স্তূপ করা হয়েছে। গুজব উঠেছে ওই মাটির স্তূপ থেকে নাকি স্বর্ণের জিনিস পাওয়া গেছে। এরপর থেকেই সাধারণ মানুষ দিন-রাত ওই মাটির স্তূপ খনন করে স্বর্ণ খুঁজছে।

এ ব্যাপারে রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী অফিসার রকিবুল হাসান বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে মাটি খুঁড়ে স্বর্ণ পাওয়ার ঘটনা শোনা যাচ্ছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে সেখানে আমাদের সার্বক্ষণিক নজরদারি রয়েছে।

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...
themesba-lates1749691102