April 19, 2024, 1:59 am
ব্রেকিং নিউজ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় প্রবাসীকে হত্যায় শাশুড়ির ভাড়াটে খুনি গ্রেফতার

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম Thursday, March 16, 2023
  • 79 দেখা হয়েছে

হায়দার আলী চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পুঁটি বিলায় সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী মনছুর আলী (২৭)কে হত্যাকান্ডে জড়িত শাশুড়ির ৪ ভাড়াটে খুনির মধ্যে ছাবের আহমদ (৫০) নামে এক খুনিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে পুটিবিলা ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের পুর্ব পহর চান্দা এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে ইবনে আমিনের ছেলে ছাবের আহমদকে গ্রেফতার করা হয়। নিহত প্রবাসী মনছুরকে হত্যার ঘটনায় জড়িত তার শাশুড়ী ছায়েরা খাতুন, শ্যালিকা রুমন্নান আক্তার এ ভাড়াটে খুনি ছাবের আহমদকে ১৫ মার্চ (বুধবার) আদালত হাজির করা হয়। আদালতে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

এ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার (এসআই) শরিফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, “নিহত প্রবাসী মনছুর আলীর শাশুড়ী ছায়েরা খাতুন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ভাড়াটিয়া খুনিদের মধ্যে খুনি ছাবের আহমদকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত খুনি ছাবেরের দেওয়া তথ্য মোতাবেক মনছুর হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি দা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত প্রবাসী মনছুরের শাশুড়ী ছায়েরা খাতুন ১ লক্ষ টাকা দিয়ে ৪ ভাড়াটিয়া খুনিদের ভাড়া করে। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি উপজেলার পুঁটি বিলা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়াডের পহর চান্দা সেকান্দর পাড়ার ফরিদ আহমদের ছেলে মনছুর আলী দুবাই থেকে দেশের আসেন। পরদিন ১ মার্চ তিনি নিখোঁজ হন। ২ মার্চ নিখোঁজ প্রবাসী মনছুর আলীর পরিবারের পক্ষ থেকে লোহাগাড়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। নিখোঁজের পর ১৪ মার্চ মঙ্গলবার ২ সন্তানের জনক প্রবাসী মনছুর আলী’র শ্বশুর বাড়ি এলাকার হাসনা ভিটা পাহাড়ি টিলার এক ঝিরি থেকে তার গলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, “প্রবাসী মনছুর আলী”র শ্বশুর বাড়িতে ওঁৎ পেতে থাকা শাশুড়ীর ভাড়াটে খুনিরা সেখানে দা দিয়ে কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। মৃত নিশ্চিত হওয়ার পর খুনির বাড়ি থেকে প্রায় ৩শ গজ দূরে নিয়ে ও-ই প্রবাসী মনছুরের লাশ একটি ঝিরিতে মাটিচাপা দেয়। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিহত মনছুর আলীর সঙ্গে তার শ্বশুর বাড়ি লোকজনের সাথে বিরোধ ছিল। সে বিরোধের জের ধরে শাশুড়ী তার মেয়ের স্বামীকে হত্যা করতে ভাড়াটে খুনিদের দিয়ে খুন করিয়েছে। এখনও পর্যন্ত নিহত প্রবাসী মনছুর হত্যা মামলার তদন্তে নিহতের স্ত্রী রিনা আক্তার জড়িত থাকার সত্যতা পাওয়া না যাওয়ায় তাকে থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে পরবর্তীতে মামলার তদন্তে যদি হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে নিহতের স্ত্রীকে এ মামলায় অন্তর্ভুক্ত করে তাকে গ্রেফতার করা হবে। প্রবাসী মনছুর হত্যা মামলার তদন্ত চলমান রয়েছে। এ হত্যাকান্ডে সরাসরি জড়িত অন্যদেরকে গ্রেফতারে অভিযান চলমান রয়েছে।”

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...
themesba-lates1749691102